মাওলানা তকী উসমানী বই কালেকশন

মাওলানা তকী উসমানী

আমরা যত কাজ করছি, আল্লাহ তাআলার ফযল ও করমে আমাদের দ্বারা যত ইলমী ও দ্বীনী কাজ হচ্ছে-চাই তা শিক্ষা-দীক্ষা হোক, লেখালেখি হোক, ফতোয়া বা ইমামতি, যাই হোক-এসবের সম্পর্ক সরাসরি দ্বীনের সাথে। এবং এটা আল্লাহ পাকের পক্ষ থেকে অনেক বড় রহমত যে, তিনি আমাদেরকে এই মহান কাজের সাথে সম্পৃক্ত করেছেন। অন্যথায় আমরা অন্য যে কোনো ব্যস্ততায় আবদ্ধ হয়ে যেতে পারতাম। নিজের পেট চালানোর জন্য মানুষ কত উপায়ই না গ্রহণ করছে। আমরাও হয়তো কোনো একটা বেছে নিতাম। কিন্তু আল্লাহ তাআলা তার অশেষ রহমতে আমাদেরকে কোনো না কোনো এমন কাজের সাথে সম্পৃক্ত রেখেছেন যার সম্পর্ক সরাসরি দ্বীনের সাথে। এর শোকর আদায় করে আমরা শেষ করতে পারব না। কেননা এটা একমাত্র আল্লাহ তাআলার তাওফীক ও দয়া। তিনি যাকে ইচ্ছা দয়া করে তার দ্বীনের কাজে লাগিয়ে দেন।

মাযহাব কি ও কেন

বইটির প্রথম অংশটি (তাকলীদ ও ইজতিহাদ) মূলতঃ পাকিস্তান শরীয়া আদালতের বিজ্ঞ বিচারপতি, স্বনামধন্য ইসলামী চিন্তাবিদ- হযরত মাওলানা মুফতি মুহাম্মদ তাকী উছমানী রচিত 'তাকলীদ কি শরয়ী হাইছিয়াত' এর বাংলা অনুবাদ। দ্বিতীয় অংশটি (ইমামদের মত পার্থক্য) প্রবীন ইসলামী গবেষক, হযরত মাওলানা সাঈদ আল মিসবাহ সাহেবের মৌলিক রচনা। বিষয়গত সাদৃশ্যের কারনে বই দুটোকে একত্রে "মাযহাব কি ও কেন?" নামে প্রকাশ করা হয়েছে।

ইতিহাসের কাঠগড়ায় হযরত মো'আবিয়া রা.

বইটির অনুবাদ করতে গিয়ে মাওলানা আবু তাহের মিসবাহ বলেছেন, “একটি দৃশ্য যেন চোখের সামনে জীবন্ত ছিলো। আল্লাহর নবীর এক মাজলুম সাহাবি দাঁড়িয়ে আছেন কাঠগড়ায়। ইতিহাসের আদালত! নির্দয় এক মাওলানা মেতে উঠেছেন কলমের হামলায় তাকে ঘায়েল করার অপচেষ্টায়। সেই মজলুম সাহাবীকে রক্ষায় জিহাদে যারা নেমেছেন কলমের তলোয়ার হাতে আমিও শরীক হয়েছি তাদের কাফেলায়।”

দুনিয়ার ওপারে

বইটি মূলত আমেরিকান লেখন রেমণ্ড মুডির আলোড়ন সৃষ্টিকারী বইত্রয় [1. life after life, 2. the light beyond 3. reflection on life after life] বইয়ের উপর ইসলামী দৃষ্টিকোন থেকে গবেষণামূলক প্রবন্ধ। যা পাকিস্তানের দৈনিক পত্রিকায় তিন কিস্তিতে প্রকাশিত হয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। রেমণ্ড তার প্রথম প্রকাশিত বই life after life এ এমন ১৫০ জন মানুষের সাক্ষাতকার নিয়ে বই লেখেন যারা একেবারে জীবনের শেষ সময় তথা জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন। তারা তাদের সে সময়কার সাক্ষাতকারে বলেন (সবার ভাষ্যই প্রায় কাছাকাছি) তাদের আত্মা দেহ থেকে বের হয়ে অন্ধকার সুড়ঙ্গের দিকে যায়। যেখানে একজন নূরের মানুষ আছেন। সবাইকেই জিজ্ঞাসা করেন তোমরা কি নিয়ে এসেছ? অল্প সময়ের মধ্যেই তাদের জীবনবৃত্তান্ত তাদের সামনে উপস্থাপন করা হয়। আল্লামা তাকী উসমানী বিষয়টির উপর ইসলামী দৃষ্টিকোন থেকে আলোচনা করেছেন। কবরের জীবন আর মৃত্যু পূর্ববর্তী এই পরিভ্রমণের ব্যাপারে ইসলামী বিশ্বাস কি? শেষ অংশে আল্লামা তাকী উসমানীর পরকাল বিষয়ক দুটি বয়ান সংযোজন করা হয় যার একটি করাচী জামে মসজিদে আরেকটি অন্য জায়গায়।